ইনস্ট্যান্ট গ্যাস্ট্রিক কমানোর ঘরোয়া ১০ উপায়

গ্যাস্ট্রিক কমানোর ঘরোয়া ১০ উপায়ঃ

গ্যাস্টিক সমাধানঃ সাধারণত কম বেশী সবাই আমরা এই গ্যাস্টিক নামক কথার সাথে পরিচিত ছোট বড় সবাই পরিচিত। আর পরিচিত থাকবই না বা কেন আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য অভ্যাসের অনিময় ,রাস্তার অ-স্বাস্থ্যকর খাবার ,অতিরিক্ত  ফাস্টফুড, জাঙ্ক ফুড, এই রকম কিছু কারনে এখন আমরা সবাই গ্যাসটিকে ভুক্তভুগী ।

ন্যাচারাল উপায়ে গ্যাস্ট্রিক কমানোর কিছু উপায়ঃ

এমন কিছু সময় থাকে যখন আমাদের কাছে কোন প্রকার মেডিসিন থাকে না তখন সাথে সাথে এমন কিছু সাধারণ জিনিস মেডেসিন হিসাবে কাজে দিবে একদম ম্যাজিকের মতন করে ।আসুন তাহলে জেনে নেই কি কি আমাদের ইনস্ট্যান্ট গ্যাস্ট্রিক কমাতে সাহায্য করবে। আর এই উপকরন কম বেশী সবার ঘরেই বা সব জাইগায় পাওয়া যায় বা থাকে।

১। পুদিনা পাতাঃ

  পুদিনা পাতা

পুদিনা পাতা শুধু গ্যাস্ট্রিক নয় বলতে গেলে প্রাই সব রোগের মেডিসিন হিসাবে কাজ করে । যদি পাকস্থলী তে ব্যাথা শুরু হয় গ্যাসের এক চামচ পাতা রস করে বা জুস হিসাবে খেলে সাথে সাথে আপনার গ্যাসের ব্যাথা কমাতে সাহায্য করবে। এ ছাড়াও পুদিনা পাতা দিয়ে চা খেলেও অনেক উপকার গ্যাস্টিকের জন্য।

২। আপেল সিডার ভিনেগারঃ

আপেল সিডার ভিনেগার

সাধারণত ডাক্তারি পরিক্ষনের মাধ্যমে প্রতিটি মানুষেই দিনে একটা করে আপেল খাওয়া উচিৎ। আপেল আমাদের শরীলের নানা প্রকার রোধ প্রতিরোধ ও ক্ষয় পূরণ করে। সেই আপেল থেকে তৈরি আপেল  সিডার ভিনেগার । এক গ্লাস হাল্কা গরম পানির সাথে এক চা চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিক্স করে খেলে খুব তারাতারি গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তি পাবেন ।

৩। লেবুঃ

 

 

লেবু

লেবু নানা ভাবে গ্যাস্ট্রিক কমাতে সাহায্য করতে পারে ,ভিবিন্ন ভাবে ব্যবহার করে খাওয়া যায় তবে সব থেকে ভাল যে উপায় তা হল এক গ্লাস ঠাণ্ডা পানি সাথে একটা লেবু ও এক চিমটি লবন সাথে মিক্স করে খেলে । তাছাড়া জিরা গুঁড়ার সাথে মিশিয়েও খেলে সাথে সাথে অনেক উপকার। লেবু জুস করে সাথে বেকিং পাওডার মিক্স ।

৪। বাটার মিল্কঃ

বাটার মিল্ক

বাটার মিল্ক খেতে খুব একটা টেস্ট ফুল নাহলেও ইহা অনেক বেশী উপকারী শরিলের জন্য। জিরা গুঁড়ো সাথে এক চিমটি লবন ও বাটার মিক্স করে খেলে কিছু সময়ের মধ্য গ্যাস মক্ত হবে।

৫। জিরা পানিঃ

 

       জিরা

জিরা গুড়ো এক চামচ একগ্লাস হালকা গরম পানিতে মিক্স করে  অথবা আস্ত জিরা এক চামচ দুই কাপ পানিতে জাল করে এক কাপ বানিয়ে খেলে গ্যাস মুক্ত থাকা যায়।

আদাঃ

    আদা

এক চামচ আদার রস সাথে এক চামচ লেবুর রস মিক্স করে খেলে সাথে সাথে গ্যাস্টিক এর পেইন কমে যায় । অথবা এক টুকরা আদা সাথে লবণ মিশিয়ে চিবিয়ে খেলে সাথে সাথে গ্যাস্ট্রিক যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৭। টক দইঃ

 

       টক দই

যখনি গ্যাস্ট্রিক অনুভব করবেন তখনি দুই চামচ টক দই এক গ্লাস পানি দিয়ে গুলিয়ে পান করবেন এতে পেটের ভিতর থেকে ঠাণ্ডা অনুভব হবে এবং গ্যাস্ট্রিক নামক জালাপোড়া থেকে রেহাই পাবেন ।

৮। আজইন বা কারম বীজঃ

  কারম বীজ

কারম বীজ খাবার  হজম করতে সাহায্য করে ।দিনে একবার কারম বীজের সাথে পানি মিক্স করে খেলে হজম হবে ও গ্যাস থেকে দূরে থাকতে সহয়তা করবে।

৯। ত্রিফালাঃ

         ত্রিফালা

হারবাল ত্রিফলা পাকস্থলী কে পরিষ্কার রাখে। রাতে ঘুমানোর আগে বয়েল গরম পানির সাথে হাগ চা চামচ ত্রিফালা মিক্স করে খেতে হবে

১০। লবঙ্গঃ

       লবঙ্গ

কয়েকটি লবঙ্গ আর এক গ্লাস পানি জাল করে হাফ বানিয়ে খেলে সাথে সাথে গ্যাস্ট্রিক যন্ত্রনা মুক্তি দেবে।

(এইরকম আর উপকারী পোষ্ট পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন)

,
nahida

About nahida

আমি নাহিদা ইসলাম। আমি একজন শখের রাঁধুনি। ছোট বেলা থেকেই রান্নার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ ছিল। ছোট থেকেই মায়ের কাছ থেকে রান্না শিখেছি। সেই সাথে বিভিন্ন বই, টিভি অনুষ্ঠান, ম্যাগাজিন থেকে অনেক রকমের রান্না আমি শিখেছি। এছাড়া আমার নিজের বানানো বেশ কিছু রান্নার টিপস রয়েছে যা আমি নিয়মিত আমার এই রান্না বিষয়ক ব্লগ সাইটে প্রকাশ করবো। আমি রান্নার পাশাপাশি, রুপচর্চা এবং ঘরের সকল ধরনের কাজের টিপস এই ব্লগে প্রকাশ করবো। যে কোন মজাদার রান্না, বিউটি টিপস জানতে চাইলে আমার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।
View all posts by nahida →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *