ভালোবাসা দিবসের স্পেশাল সাজগোজ এবং ফ্যাশন

ভালোবাসা দিবসের সাজগোজ নিয়ে কিছু কথাঃ

ভালোবাসা দিবসঃ প্রথমে রবি ঠাকুরের বিখ্যাত কবিতা দিয়ে শুরু করতে চাই” সখি ভালোবাসা কারে কয়, সেকি কেবলি যাতনা ময় ”

ভালোবাসা কি? কাকে বলে? কোথায় ই বা এর উৎপত্তি স্থল……অনেকে তো অনেক কথায় বলে কিন্ত যদি খুব ছোট করে বলি তাহলে যে বলতে হয় ভালোবাসার উৎপত্তি মানুষের মনে, ভালোবাসা এক অনুভুতি, আর এই অনুভূতি থেকে যা সৃষ্টি হয় তাকেই ভালোবাসা বলে । পৃথিবীতে এই ভালোবাসা নিয়ে যুগের পর যুগ হচ্ছে গবেষণা আর সেই গবেষণারই ফল সরূপ বলতে পারি ১৪ই ফ্রেব্রুয়ারি অথাৎ বাংলাই ফাল্গুনের ২য় দিন বিশ্ব ভালোবাসা দিবস হিসাবে পালিত হয়। এই দিন কে ঘিরে মানুষের মনে নানা রকম জল্পনা কল্পনার বাসা বাঁধে । প্রিয় মানুষ টির সামনে নিজেকে আরো বেশী সুন্দর ও রঙিন করতে নিজেকে পরিপাটি করে তোলা।

ভালোবাসা দিবসের বিশেষ রংঃ

আসলে ভালোবাসার বিশেষ কোন রঙ না থাকলেও ভালোবাসা দিবস মানেই লাল রঙ আমাদের মনে এসে পাড়ি জমায়।শুধু লাল নয়,এই দিনে লাল রঙের সাথে হলুদ,সবুজ ও নিলের মিশ্রণ কিন্তু বেশ জম জমাট করে তোলে আমাদের চার পাশের পরিবেশ কে। এই দিন কে ঘিরেই অনেক দিন আগে থেকেই কেমন রুপে বা রঙ্গে সাজবো এমন আভা মনে ভাসে ।

কেমন হওয়া উচিৎ ভালোবাসার সাজঃ

ভালোবাসার টানে আমরা সেজে থাকি প্রিয় মানুষটির কাছে স্পেশাল হয়ে থাকতে ।সাধারনত এই দিয়ে বাঙালি মেয়েরা শাড়ি আর ছেলেরা পাঞ্জাবী পড়ে ।পাশাপাশি কেউ আবার সেলোয়ার কামিজ, স্কাট ,ফোতুয়া এই সব ড্রেস পড়ে। কিন্তু ভালোবাসা দিবসের সাজ খুবি সাধারণ হয়ে থাকে এই যেমনঃলাল পেড়ে শাড়ি,কপালে লাল টিপ,খোপায় এক গুচ্ছ ফুল,হাতে চুড়ি । ঠিক যেন বাঙালি এক মায়াবী নারী…

ভালোবাসা দিবস
ভালোবাসার সাজগোজ

আগের দিন পহেলা ফাল্গুন থাকাতে ভালোবাসা দিবসেও কিন্তু হলুদ বা বাসন্তী রঙ টা বেশ চোখে পড়ে ।মাথায় গুলের মালা পড়ে মনের আনন্দে পাখিদের মতন ঘুড়ে বেড়ানো আর মনে বাজে একটাই গান” আহা আজি এই বসন্তে কত ফুল ফোটে ……”

ভালোবাসা দিবসের সাজ
ভালোবাসা দিবসের সাজ

শুধু যে রমনীরা এমন ভাবে সাজে তা নয় পাশাপাশি প্রিয় জনের সাথে  তাল মিলিয়ে ছেলেরাও মেতে উঠে ভালোবাসা ময় রঙিন পৃথিবীতে

ভালোবাসা দিবসের সাজ
ভালোবাসা দিবসের সাজ

ভালোবাসা দিবস টি শুধু মাএ সাজগোজের মধ্য সীমাবদ্ধ থাকে না এর সাথেও থাকে নানা ধরনের উপহার ফুলের তোরা ,ভালোবাসা দিবসের কাড তার সাথে লিখা মনের কিছু কথা সহ নানা রকমের গিফট ।এই বিশেষ দিনে প্রিয় মানুষদের সাথে ও পরিবারের সাথে সময় কাটিয়ে দিন টিকে সরণীয় করে রাখা হয়।এই ভাবেই দিন টিকে পালন করে আবার সেই অপেক্ষার পালা দিন গোনার পালা কবে আসবে আসবে ফিরে এই দিনটি ।

 

nahida

About nahida

আমি নাহিদা ইসলাম। আমি একজন শখের রাঁধুনি। ছোট বেলা থেকেই রান্নার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ ছিল। ছোট থেকেই মায়ের কাছ থেকে রান্না শিখেছি। সেই সাথে বিভিন্ন বই, টিভি অনুষ্ঠান, ম্যাগাজিন থেকে অনেক রকমের রান্না আমি শিখেছি। এছাড়া আমার নিজের বানানো বেশ কিছু রান্নার টিপস রয়েছে যা আমি নিয়মিত আমার এই রান্না বিষয়ক ব্লগ সাইটে প্রকাশ করবো। আমি রান্নার পাশাপাশি, রুপচর্চা এবং ঘরের সকল ধরনের কাজের টিপস এই ব্লগে প্রকাশ করবো। যে কোন মজাদার রান্না, বিউটি টিপস জানতে চাইলে আমার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।
View all posts by nahida →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *