ভাপা পিঠার হরেক রকম রেসেপি বানানোর সহজ পদ্ধতি

 ভাপা পিঠার হরেক রকম রেসেপি বানানোর সহজ পদ্ধতিঃ

আজ আপনাদের সামনে আমি নাহিদা ইসলাম হাজির হয়েছি নানা রকমের পিঠা পুলি নিয়ে। আজ শুধু শীতের নয় আছে শীত ও গরম সারা বছর চলে এমন কিছু অসাধারন পিঠা নিয়ে। টক ঝাল মিষ্টি সব রকমের পিঠার রেসেপি আজ আপনাদের জানাতে আমার রকমারি পিঠা পুলি আয়োজন………

১. ভাপা পিঠাঃ

আতপ চালের গুঁড়া ৫০০ গ্রাম, গুড় ১ কাপ , নারকেল কুরানো ১ কাপ, লবন আধা চা চামচ,পানি সামান্য।

প্রস্তুত প্রনালীঃ

রকমারি বাঙালি পিঠা পুলি বানানোর সহজ পদ্ধতি
  ভাপা পিঠা

উপকরনঃ

পিঠার জন্য ছোট  ২টি বাটি ,২ টুকরো পাতলা কাপড় ।চাল গুরো একটু পানি দিয়ে ঝুরজুরা করে মাখিয়ে নিন বাশের চালুনিতে করে চেলে নিতে হবে।এবার বাটিতে অধেক চালের গুরা দিয়ে অপরে গুড় দিয়ে তার ওপরে নারকেল বিছিয়ে দিয়ে তার ওপরে চালের গুরি দিয়ে টুকরা কাপড় ভিজিয়ে বাটি ঢেকে অল্টে দিয়ে ফুটন্ত গরম পানির ছিদ্র করা ঢাকনার ওপর বসিয়ে বাটিটি উঠিয়ে পিঠার কাপড় দিয়ে ঢেকে দিতে হবে ।পাঁচ ছয় মিনিট পর পিঠা উঠিয়ে পরিবেশন করুন।

২. খেজুর রসের ভাপা পিঠাঃ

উপকরনঃ

ঘন খেজুরের রস আধা কাপ, পাতলা খেজুরের রস ২ কাপ,মিহি কুরানো নারকেল ১ কাপ ,সেদ্ধ চালের গুড়া ২ কাপ, আতপ চালের গুড়া আধা কাপ, পানি ১ কেজি,পাতলা কাপর ২ টা।একটি ভাপা পিঠার হাড়ি ও পিঠা বানানোর বাটি।

রকমারি বাঙালি পিঠা পুলি
  খেজুর রসের ভাপা পিঠা

প্রস্তত প্রণালীঃ

সেদ্ধ ও আতপ চালের গুড়া লবন দিয়ে আস্তে আস্তে মাখাতে হবে সাথে ঘন রস দিয়ে মাখতে হবে । যাতে পুরো মিইক্সরন ঝরজরে থাকে।খেয়াল রাখতে হবে যেন চাকা না হয়। তারপর একটা মোটা চালনিতে মিক্সরন চালে নিতে হবে হাল্কা হাতে নারকেল মিশাতে হবে।হারি তে পানি ফুটে উঠলে বাটিতে হাল্কা হাতে চেপে পিঠা বসাতে হবে। কাপরে বাটি পেচিয়ে ফুটন্ত পানির মুখে দিতে হবে.৫-৬ মিনিট পর নামিয়ে খেজুরের রসে ভিজিয়ে খেতে হবে।

৩.শাহি ভাপা পিঠাঃ

শাহি ভাপা পিঠা নাম শুনলেই মোগল মোগল একটা ভাব চলে আসে আজ আমরা সেই শাহি ভাপা পিঠা কিভাবে বানাই তা দেখে নিবো –

কি কি লাগছে শাহি ভাপা পিঠা বানাতে

উপকরণঃ 

সেদ্ধ চালের গুড়া ২ কাপ,পোলাওরের চালের গুড়া ২ কাপ,খেজুরের গুড় দের কাপ ,নারকেল কোরানো ২ কাপ,দুধের ক্ষীর ১ কাপ,মালাই ১ কাপ,কিশমিশ ২ টেবিল চামচ-

প্রস্তুত প্রণালীঃ

রকমারি বাঙালি পিঠা পুলি বানানোর সহজ পদ্ধতি
  শাহি ভাপা পিঠা

হারিতে বাষ্প উঠাতে হবে ।চালের গুড়ার পরিমান মতন লবন ও পরিমান মতন কুসুম গরম পানি এমন ভাবে মিশাতে হবে যেন চালের গুড়া দলা না বাঁধে। চালের গুড়া বাঁশের চালনিতে চেলে নিতে হবে।গুড়াই অধেক নারকেল মেশাতে হবে। একটি বাটিতে অল্প কিছু চালের গুড়া ,কিছু নারকেল মাখানো চালের গুড়া,কিছু গুড় দিয়ে এর উপর আবার নারকেল মাখানো চালের গুড়া দিয়ে দুধের ক্ষীর,পেস্তাবাদাম,কিশমিশ দিয়ে আবার কিছু চালের গুড়া মিশিয়ে একটি ভেজা পাতলা ভেজা কাপড় দিয়ে ধরে গরম পিঠার হাঁড়ির মুখে রেখে বাটি উল্টে দিতে হবে।এরপর তা ঢেকে দিয়ে ১০-১৫ মিনিট প কাপড় সহ পিঠা তুলে কাপড় থেকে ছরিয়ে রাখতে হবে।পিঠার অপর মালাই পেস্তাবাদাম কুচি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

nahida

About nahida

আমি নাহিদা ইসলাম। আমি একজন শখের রাঁধুনি। ছোট বেলা থেকেই রান্নার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ ছিল। ছোট থেকেই মায়ের কাছ থেকে রান্না শিখেছি। সেই সাথে বিভিন্ন বই, টিভি অনুষ্ঠান, ম্যাগাজিন থেকে অনেক রকমের রান্না আমি শিখেছি। এছাড়া আমার নিজের বানানো বেশ কিছু রান্নার টিপস রয়েছে যা আমি নিয়মিত আমার এই রান্না বিষয়ক ব্লগ সাইটে প্রকাশ করবো। আমি রান্নার পাশাপাশি, রুপচর্চা এবং ঘরের সকল ধরনের কাজের টিপস এই ব্লগে প্রকাশ করবো। যে কোন মজাদার রান্না, বিউটি টিপস জানতে চাইলে আমার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।
View all posts by nahida →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *