শাক সবজির পুষ্টি ও ভেষজ গুনাগুনের উপকারিতা

শাক সবজির বিশেষ গুনাগুন ও উপকারিতাঃ

শাক সবজির পাঁচ অসাধারন উপকারিতাঃ পৃথিবীতে নানা জাতের সবজি আছে এবং এই সবজির মধ্য আলাদা আলাদা পুষ্টি গুন রয়েছে

 

প্রচলিত কিছু শাক সবজির পুষ্টি তথ্য নিম্নে আলোচনাআকরা হলঃ

ফুল কপির অনেক গুনঃ 

ফুল কপি
ফুল কপি

এক কাপ সিদ্ধ ফুল কপিতে 55 গ্রামের মতন ভিটামিন সি থাকে যা ফ্যাট কমাতে খুবি উপকারী উপাদান।এছাড়াও এক কাপ ফুল্কপিতে ৩০ কিলো ক্যালরি শকরা থাকে। আরো আছে গ্লুকোরাফিন যা পাকস্থলিতে হ্যালোব্যাক্টার পাইলোরি নামক ব্যাক্টেরিয়া কে জন্মাতে দেরনা।এতে রয়েছে জিংক যা নতুন কোষ সৃষ্টি করে ক্ষত নিরাময় করতে সাহায্য করে।নিয়মিত ফুলকপি খেলে হাড় ও দাত মজবুত করে সাথে স্নায়ুকে সচল রাখে। ক্ষত স্থানে রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে।

বাঁধা কপি/ পাতা কপিঃ

পাতা কপি
 পাতা কপি

পাতা কপির কিছু গুন ও পুষ্টি নিয়ে কিছু তথ্য আপনাদের জানাবো। কম বেশী আমারা সবাই পাতা কপি খাই বা পছন্দ করি কিন্তু আমরা পাতা কপির সঠিক পুষ্টি সম্পকে জানি না। আসুন তাললে জেনে নেই-পাতা কপি খুবি সুলভ্য সবজি আদি কাল থেকেই পাতা কপির প্রচলন বহু।সবজিটি তে আছে নানা ধরনের ভিটামিন সমৃদ্ধ, আছে প্রচুর পরিমাণ আশ,ক্যালশিয়া,আয়রন,সালফার,ফস্ফরাস সহ প্রয়োজনীয় সব খাদ্য উপদান। পাতা কপি ওজন কমায়,মাথা ব্যাথা দূর করে এবং কি হাড়ের ব্যাথা কমাতে পাতা কপির কোন তুলনা নেই। যাদের রক্ত সল্পতা আছে তাদের জন্য পাতা কপি প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত।

গাজরের উপকারিতাঃ

 

গাজরের উপকারিতা
 গাজরের উপকারিতা

 

গাজরে আছে প্রচুর পরিমান বিটাক্যারোটিন যা শরীলে ভিটামিন এ অভাব পুরন করে সব শাক সবজি তেই ভিটামিন এ থাকে না কিন্তু যে সবজি গুলোতে বিটাক্যারোটিন আছে সেই সবজি গুলো ভিটামিন এ অভাব পূরন করে। প্রতিশ 50 গ্রাম গাজরে 30 কিলোক্যালোরি খাদ্য শক্তি থাকে এছাড়াও আছে স্নেহ, ক্যারোটিন,প্রোটিন,খনিজ,ভিটামিন বি,ভিটামিন সি,লৌহ,ক্যালসিয়াম ।

*গাজর কাঁচা খেলে দেহে পানির কাজ করে এবং ক্ষুদা কমমিয়ে শরীলে শক্তি যোগার

*ডাইরিয়া ও বমি বমি ভাব দূর করতে সহয়তা করে গাজর

*রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায় গাজর

*রক্ত পরিস্কার সহ সৃতি শক্তি বাড়ায় গাজর

*গাজরে ভিটামিন সি থাকাতে দাঁত শক্ত ও মজবুত করে

তাই আসুন নিয়মিত গাজর খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলি,প্রতিদিন একটি হলেও গাজর খাওয়ার চেষ্টা করুন।

টমেটোর গুনাগুনঃ

টমেটোর গুনাগুন
    টমেটোর গুনাগুন

সাধারণত বাংলাদেশে টমেটোকে ফল হিসাবে নয় সবজি হিসাবেই পরিচিত।পুষ্টি গুনে ভরপুর এই সবজি দেহের প্রাই ৮০ ভাগ রোগ প্রতিরোধ করে থাকে ,তাহলে টমেটোর বিশেষ কিছু গুন আলোচনা করা হল

  •  মাড়ি থেকে রক্ত পাত বন্ধ করতে সাহায্য করে
  • ত্বক সফট করে ও ত্বকের বলি রেখা কমায়
  • টমেটোতে রয়েছে ক্যালসিয়াম তাই শরীলের হাড় মজবুত করে
  • টমেটোতে ভিটামিন এ থাকায় যাদের অ্যাজমা আছে তা নিয়ন্ত্রণ করে
  • চমরোগ নিরাময় করতে টমেটো অসাধারন কাজ করে
  • মুখের বয়সের ছাপ দূর করে থাকে

তাই প্রতিদিন সালাদ বা তরকারি হিসাবে টমেটো খেতে হবে

শিম/শিমের বীচের উপকারিতাঃ

শিমের উপকারিতা
   শিমের উপকারিতা

শিম ও শিমের বীচিতে আছে প্রচুর পরিমান ভিটামিন ,ফাইবার,মিনারেল,প্রোটিন, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এছাড়া আছে বেশ কিছু অসাধারন গুন যেমন –

  •  শিম খবারের হজম শক্তি বাড়ায়
  • অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকাতে কোলন ক্যানসার অ্যাডেনোমার অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে
  • শিম রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রন করে
  • এটি শরীলের অতিরিক্ত ফ্যাট নিয়ন্ত্রন করে
  • শিমের বীচিতে প্রচুর ভিটামিন বি আছে যা স্নায়ুতন্ত্রের কাজ করে

*নিয়মিত বেশী করে সবজি খাদ্য তালিকায় রাখুন এবং বেশী বেশী পানি পান করে নিজেকে সুস্থ্য রাখুন*

nahida

About nahida

আমি নাহিদা ইসলাম। আমি একজন শখের রাঁধুনি। ছোট বেলা থেকেই রান্নার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ ছিল। ছোট থেকেই মায়ের কাছ থেকে রান্না শিখেছি। সেই সাথে বিভিন্ন বই, টিভি অনুষ্ঠান, ম্যাগাজিন থেকে অনেক রকমের রান্না আমি শিখেছি। এছাড়া আমার নিজের বানানো বেশ কিছু রান্নার টিপস রয়েছে যা আমি নিয়মিত আমার এই রান্না বিষয়ক ব্লগ সাইটে প্রকাশ করবো। আমি রান্নার পাশাপাশি, রুপচর্চা এবং ঘরের সকল ধরনের কাজের টিপস এই ব্লগে প্রকাশ করবো। যে কোন মজাদার রান্না, বিউটি টিপস জানতে চাইলে আমার ব্লগ সাবস্ক্রাইব করুন। সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।
View all posts by nahida →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *